কপাল দোষে কলঙ্কিনী
কেহ কী তাকে বলবে কথা !
অন্যায়ের সীমারেখা পেরিয়ে
ডুব দিয়েছে গভীর পানিতে।
কীভাবে দেবে বিচার
বিধাতার ওই আসনতলে !
করেছে যারা কলঙ্কিনী
তাহাকে আমি তালিম দেবো
কলমের লেখার গুণে
আমি তো মূর্খ শহীদ
শুয়ে আছি সমাধির নীচে।
সমাচার সহিত নীতি
মানতে পারিনা কভু আমি
কবিত্ব হারায় যদি
লিখবে তবে কোন কবি !
কফিনের মৃতদেহ
আমার চোখে ভাসে
আগুন জ্বালিয়ে দেয় অন্তরেতে
হয়তো তাহার ও কিছু বলার ছিল;
তাহার চোখের না বলা ভাষা
কাঁদিয়ে দেয় আমাকে বারে বারে।
আমার হৃদয়ের কপাটে
কে যেন ধাক্কা দেয় নিশিরাতে
হঠাৎ করে ডায়রীর পাতায়
লিখি আমি আপন মনে।।

১৩০৪২০২১