নদীর স্রোত আর নারীর প্রেম,
নিঃস্ব করে বানিয়েছিলো যাযাবর,
জীবন প্রবাহ দিয়েছিলো থামিয়ে,
ভাঙ্গা-গড়ার তিরিশ বছর পর,
নদীর কাছে আছে নিষ্ঠুর অভিযোগ
আর নারীর সাথে অভিমান।

সর্বগ্রাসী নদী,
এতই কি ছিলো তোর ক্ষুধা!
কেরে নিলি শেষ বসত বাড়িটুকুও,
এ কোন্ জনমের শোধ নিলি তুই?
স্বর্গ সুখের দিন ছিলো, শৈশব থেকে যৌবন;
শেষ স্মৃতিটুকুও নিলি কেড়ে।

বেঁচে রইলো শুধু নিষ্পাপ এই হৃদয়টা…

সর্বনাশী নারী,
এই নে দিলাম তোকে নিষ্পাপ এই হৃদয়টা,
যতন করে রাখিস্, যদি না পারিস্;
ভেঙ্গে টুকরো টুকরো করে ফেলিস্,
রক্তে রাঙ্গিয়ে দিস্ রক্তপিপাসু নারী,
মিটিয়ে নিস্ তোর তিন জনমের সাধ!