আমৃত্যু আকুলে ধেয়ে নীরদের মতো
সকলে বাজাতে চায় প্রাণ সঁপে ধরণীর বীন,
সময় তো হেঁটে চলে আপনারই পথে
যতোই উদরে তার ক্ষয়ে হোক নিশুতি বিলীন।

দুধেল গাভীর ডাকে ভুখা চোখে ভাবি
স্বভাবে চলেছে বেঁকে আজও সেই বিকেলের ট্রেন,
আমার আকাশে এসে ধড়ফড়ে মেঘ
বিবশ চিলের পাখে সাজুক না ব্যথিত সফেন!

ছড়ায়ে সুরেলা হাসি যমুনার ধারা,
না পেয়েও প্রিয় তার পাল তোলা নাও
ভুলেনি পাড়ের তরে এনে দিতে শ্যামলা ইশারা।

চেনা সে নির্জন বাঁকে শালিকের ঝাঁক,
নাইবা গাইলো গীতি অপেক্ষার সুরে
নিশ্চয় গোপনে যাচে ঘুম ঝরা মহিষের নাক।

আবার উঠবে প্রাতে নিয়মেই জেগে
সতেজ ঘাসের বুকে অগণিত হিমে ভেজা ফুল,
তুমিই আমাকে শুধু খুঁজবে না জানি
খুঁজবে না জানি
খুঁজবে না জানি
পৌষের মেলার তরে ক্ষণকাল হবে না ব্যাকুল।