আমি যতই কুয়াশা সরাই, তুমি রহস্যের পর্দা টেনে যাও
বৈরী স্রোত ঠেলে যতই ছুটি, স্বপ্নের খুনসুটি, তীরে
এসে ডুবে যায় নাও! আমি আকাশ ছুঁতে নক্ষত্র লুটে, ভাবি
তোমাকে দেব অর্ঘ্য। তোমার কলহাস্যে-খেয়ালে,
প্রতিনিয়ত হামলে পড়ে উপেক্ষার দেয়ালে আবেগ মথিত
স্বর্গ। আমি স্বপ্ন আবার বুনি, তুমি ফিরে
আসবে, প্রত্যশায় কাব্যময় প্রহর গুনি।

আমি যতবার তোমার সামনে দাঁড়াই, যতই
দু’হাত বাড়াই কেবলই নিন্দা জোটে। তোমার দু’চোখে
জ্বলে ওঠে আগুন ভরা দ্রোহ, তুমি নিপাট নির্মোহ,
আমাকে ফিরিয়ে পুষে রাখো অহংকার। আমি
যেন ঝরা ফুল,ভেঙে পড়া কূল বা বলতো
পারো অযতনে থাকা কোন বীণার ছেঁড়া তার।

আমি তারপরও তোমার সামনে আসি
বলতে না পারি, জানান দিই ‘শুধু তোমাকেই ভালোবাসি!’