নতজানু, বসে আছি, নতমুখ, বীতসুখ কতকাল, তার অপেক্ষায়,
তীক্ষ্ণধার কত জল,
ব্রহ্মরন্ধ্র থেকে, কটি বেয়ে মিশে গেল, ভূমে,
ভিজে গেল পর্বত, তৃপ্ত কন্দর আর ঊর্বরা সে জঙ্ঘাদেশ,
সান্দ্র হলো ভূমি করুণায়।
নতজানু, বসে আমি অন্তহীন তবু অপেক্ষায়।

আকাশ পিতার মতো রক্ষা করেছো আমায়,
বাতাস বন্ধুর মতো বয়েছো প্রশ্বাস।
ধরিত্রী মাতার মত পুষ্টি তুমি আমার অস্তিত্বে।
ভূমি বলেছিল,
অকলুষ একটিও চুম্বন যদি দিতে পারি
সে আমাকে ভালবাসা দেবে,
সে আমায় জীবনে ফেরাবে,

তবু, কতকাল ভূমিতে,
বসে আমি, নতমুখ, বীত সুখ,
চুম্বনে এখনও বিষ,
কলুষ ঠোঁটের স্পর্শে,
সর্বংসহা ভূমি জ্বলে যায়।
ভূমি, ওয়ি, বসে তুমি
সেই চুম্বনটির অপেক্ষায়।