এখানে মৃত্যুর দেশে

লিখেছেন - অভিজিৎ হালদার

এখানে মৃত্যুর দেশে ভোরের সূর্য ওঠে হেসে, এ পৃথিবীর অমাবস্যার রাত্রে অতীতের মৃত লাশ জেগে ওঠে জীবিত মানুষের রক্তের খোঁজে; যদি বলি, মানুষের ভিতর মানব জেগে থাকে মৃত্যুর আগে এ পৃথিবীর ক্লান্তি-তবুও নেই শেষ সেইখানে মৃত্যু আসে; অতীতের মানব জেগে ওঠে আজকের লাশে; আজ তবু পৃথিবীর সীমা ছাড়ালে মনে হয় কোনো এক রাজা-মহারাজার যুগে যখন নিরীহ মানুষের মৃত্যুদণ্ড দেওয়া হতো বিনাদোষে-নিরালা মনের সুখে। পৃথিবীর সরল পথে হেঁটে হেঁটে যখন বুঝতে পারি, পৃথিবীর গভীর মানে- তখন এক নির্জনতা আমাকে নিয়ে যায় তেপান্তরের ঘূর্ণিপাকে। মাত্র কয়েক যুগ পৃথিবীতে বেঁচে থেকে তবুও যে অভিজ্ঞতা আমি লাভ করিয়াছি তাহা ঢের বেশি প্রিয় মানসের কাছে; অদ্ভুত এক শক্তি পৃথিবীতে আছে যাহা মানুষের আত্মাকে নিয়ে যায় অচেনা দেশে। এখানে মৃত্যুর দেশে ভোরের সূর্য ওঠে হেসে, স্পেন থেকে ইতালি সব হয়ে গেছে আঁকা, তবুও বাকী থাকে মানবের ইতিহাস রয়ে যায় পৃথিবীর যুগে। শতাব্দী আজ মানুষের বুকে পাহাড়-মরুভূমি-সমুদ্র-আকাশ এরকম হতে লাগবে আরো লক্ষ- কোটি যুগ; যখন পৃথিবীতে ঘনিয়ে আসবে গভীর আন্ধার ঠিক তখনই আন্দোলন গড়ে উঠবে মানবের বাঁচার আশায়! একদিন পৃথিবীর আকাশ নীলে নীলে ভরে যাবে ইতিহাসের শতাব্দীরা তখন সভ্যতার হাতে উৎসাহ দিয়ে যাবে মানুষের মৃত্যুর কাছে; নক্ষত্র অভিমানে দূরে যাবে সরে তখনই মানবের পরাজয় ঘটবে এখানে মৃত্যুর দেশে।। ১৫০৭২১