স্বাধীনতা তুমি আমাদের
রক্তমাখা কলমের কালি
তুমি বিধির ধরার সকলের
আহত হৃদয় বাগানের মালি।

তোমায় দেখতে
তোমার চিত্রটি আঁকতে
করেছে সাধনা ক’ত চিত্রকর।
তোমাকে পাওয়ার জন্য
তোমাকে গড়ে তোলার জন্য
স্বপ্ন সাগরে ডুবেছে ক’ত খনিকর।
হারাতে চাইনা আবার
গড়ে তোলতে চাইনা আর
তুমি দেখতে এমনিতেই অনেক সুন্দর।

স্বাধীনতা তুমি আমাদের
কবির লেখা বিনয়ী কবিতা,
রবী ঠাকুর আর নজরুলের
অশ্রিক রক্তের কাব্যের খাতা।

তুমি এদেশের আকাশ
এদেশের সুগন্ধ বাতাস
তুমিই সুখ নামের আরেক নাম।
সুন্দরের আরাধনা করা প্রেমিক
মাথায় গামছা বাঁধা কৃষক শ্রমিক
তাদের কষ্ট সহিষ্ণুতার গাম।

স্বাধীনতা তুমি আমাদের
প্রতি শ্বাস-নিশ্বাস,
আশ্রয়হীন যাযাবর পথিকের
হাসি ফুটানো এক বিশ্বাস।

তুমি থাকবে চরে
নীল আকাশে যেই পতাকা উরে
সেই পতাকার ভিতর।
তুমি থাকবে কুসুম বাগে
যা দেখে হৃদয় জাগে
ঘ্রাণ নিলে মনে হয় যেন তুমি আতর।
তুমি জীবন যৌবনের
শিশু থেকে বৃদ্ধ বয়সের
তাক লাগানো কাল্পনিক ছবি।
তাইতো আজ তোমারই গানে
তোমারই সুগন্ধ ঘ্রাণে
আসক্ত হয়েছে কত কবি।

স্বাধীনতা তুমি আমাদের
প্রত্যেকটা ক্ষত-বিক্ষত অংগের বিনিময়,
শহীদদের তর্জন-গর্জন ভূমিকম্প
ঘূর্ণিঝড়, চোনামি মহাপ্রলয়।।

(কাব্য সংকলনঃ নীল কাব্য)
ভারত, আসাম 787031