দেখ! কী সর্বনাশী ওই বেহায়া মেয়ে
নিজেই কলঙ্কের দিকে যায় ধেয়ে।

প্রথা না মানা মেয়ে মানেই খারাপ?
তার সব কিছুতেই লেগে থাকে পাপ!

মেয়েটা খারাপ তুমি জানলে কী করে?
কতখানি ঢুকেছ তার আত্মার ভেতরে?

আঁটেনি সে ভালো-মন্দের পুরাতন মাপে
ঢোকাতে পারনি তাকে চিরচেনা খাপে!

এখানেই হয়ে গেছে তার বড় অপরাধ
প্রথাগত সভ্যতার সাথে লেগেছে বিবাদ।

প্রথা যে বানিয়েছিল শত শত যুগ আগে
তাকে কী সওয়াল করবে না তুমি রাগে?

কেন এতটা অন্যায্য ছিল তার এই দৃষ্টি?
মেয়েমানুষ কী করে হ’য় নিচু এক সৃষ্টি?

বিধাতা কখনো নয়, চতুর পিতারা মিলে
মেয়েদের একেবারে নিচে ঠেলে দিলে।

তোমরা যে মেয়েটির নিন্দা কর আজ
একটাই দোষ তার, ভেঙেছে রেওয়াজ।

অবাধ্য মেয়েটি প্রথাকে প্রশ্ন করেছিল
অতএব যুগে যুগে লোকনিন্দা এনেছিল।

তার হয়ে আমিই সওয়াল করি আজ।
কতটুকু দোষ হয় ভাঙলে রেওয়াজ?

সব মেয়ের জিভ আছে তবু চুপ থাকে
প্রশ্ন করে একটি মেয়ে নিন্দার পাঁকে।